যেদিন নিজেই নিজের নাম রেখেছিলাম

নামকরণ নিয়ে বেশ বিড়ম্বনায় পড়েছিলাম ছোটবেলায়। কিভাবে যেন ছোটবেলায় কে নাম রেখেছিল রনি। সবাই সেই নামেই ডাকতো। আমাদের এলাকায় প্রায় সবারই ২ টা নাম থাকতো- একটা ভাল নাম, আরেকটা ডাকনাম। আমার ভাল নাম পারভেজ। এর আগে পিছে কি লাগানো হবে বিড়ম্বনাটা সেটা নিয়েই ছিল।

যাহোক, যখন ক্লাশ ফাইভে উঠলাম তখন সার্টিফিকেটের জন্য একটা পুরো নাম রাখা জরুরী হয়ে পড়লো। এ উপলক্ষ্যে গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো। সাগরবাবু তখনও হয়নি। তাই আমি, আব্বু আর আম্মু মিলেই বৈঠক। সেখানে পারভেজ নামের সাথে অল্প-বিস্তর লেজ লাগিয়ে বেশ কয়েকটা নাম প্রস্তাব করে এপ্রুভালের জন্য আমার কাছে পাঠানো হলো।

প্রথম নামটা প্রস্তাব করলো আম্মু। “জহিরউদ্দীন পারভেজ”। পারভেজের আগে সম্রাট বাবরের নামের প্রথম অংশ জুড়ে দেওয়ার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছিল। আম্মুর স্কুলে একটা ছেলে ছিল নাম জহির। ছেলেটাকে আমার তেমন একটা ভাল লাগতোনা। নিজের নামের আগে তার নাম এসে যাচ্ছে ভাবতেই গা রি রি করে উঠলো। সাথে সাথে এই নাম বাতিলের খাতায় তোলা হলো।

এরপর আরও কয়েকটা নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল ভুলে গেছি অনেকগুলো। যেগুলো মনে আছে সেগুলোর ভেতর একটা মুঃ পারভেজুল ইসলাম। নামের শেষে শক্তির এককটা সংযুক্ত করে দেওয়ার বুদ্ধিটা আব্বুর। জুল শব্দটা লাগালে এরপর ইসলাম লাগানো সহজ। তাছাড়া আব্বুর নামের সাথে শক্তির একক এবং ইসলাম দুটো শব্দই আছে। সুতরাং এই শব্দদুটো লাগালে আব্বুর সাথে মিল থাকবে। পারভেজুল নামটা তেমন একটা পছন্দের না হলেও শুধু এই কারণে নামটা এপ্রুভ করে দিলাম। সেদিন থেকে কাগজে কলমে হয়ে উঠলাম “মোঃ পারভেজুল ইসলাম”।

তারপরও পারভেজুল রনির জৌলুস কেড়ে নিতে পারেনি। পারভেজ শব্দটা ভাল লাগলেও পারভেজুল শব্দটা আমার ভাল লাগেনা। তার উপর রনি নামটা অনেক ছোট। তাই কেউ জিজ্ঞেস করলে নিজেকে রনি বলেই পরিচয় দিতাম। “মোঃ পারভেজুল ইসলাম” তোলা থাকতো কাগজ কলমের জন্য।

যখন ফেসবুক একাউন্ট খুলি তখন সর্বশেষ পারভেজুল, রনির মারপ্যাচে পড়েছিলাম। ফেসবুকে ফার্স্ট নেম, লাস্ট নেম লাগে। কি দিই, কি দিই। চিন্তায় পড়লাম । হুট করে ফার্স্ট নেম রনি আর লাস্ট নেম পারভেজ দিয়ে দিলাম। ফেসবুক বাই ডিফল্ট সেটাকে রনি পারভেজ করে দিল। আর আমিও নিজের নতুন একটা নাম জানলাম। নামটা আমার ভালই লাগে, অন্তত মোঃ পারভেজুল ইসলামের চেয়ে। তাই তখন থেকে আমি রনি পারভেজ। ফেসবুক, টুইটার, ব্লগ সব জায়গায় রনি আর পারভেজুল সন্ধি করে রনি পারভেজ হয়ে গেল।

এখনও মনে পড়ে। এইতো সেদিন নিজেই নিজের নাম রাখলাম। মোঃ পারভেজুল ইসলাম। বিবর্তিত হলো রনি পারভেজে।

16 responses to “যেদিন নিজেই নিজের নাম রেখেছিলাম

  1. আপনার কাহিনিতো দারুন। আমার মনে হয় এখন সার্টিফিকেটের নামটাও চেঞ্জ করা উচিত😀 । রনি পারভেজ একটা ইউনিক নাম। নতুনত্বে ভরা।

    ব্লগের নতুন রুপটা সিম্পল হলেও দারুন।

  2. গোলটেবিল বৈঠক করে এর আগে কখনো কাউকে নিজের নাম রাখতে শুনিনি! নামকরণের ইতিহাসে তুমিই এদিক দিয়ে প্রথম কিনা কে জানে?

  3. রনি ভাই আমার নামটা জানেন? “মোহাম্মদ নূর এলাহী আলী শিবলী”! যতদূর সম্ভব আমার বিয়ের সময় মেয়ের বাবা বলবে এত গুলা মেয়ে তো আমার নাই!

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s